এখনো ফুরিয়ে যাননি গাঙ্গুলী

বায়েজিদ  স্পোর্ট স ডেস্ক : ২০০৮ সালে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন ভারতের সাবেক সফল অধিনায়ক ও দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী। ২০০৭ সালে ওয়ানডেকে বিদায় দেন তিনি। তবে হঠাৎ করেই সাবেক এ অধিনায়ক জানালেন এখনো ফুরয়ে যাননি তিনি। জানালেন তিস মাস সময় পেলে এবং রঞ্জি ট্রফিতে কয়েকটা ম্যাচ খেললে টেস্ট ক্রিকেটে এখনো রান করতে সক্ষম তিনি।
১৯৯২ সালে ওয়ানডে দিয়ে ভারতের হয়ে অভিষেক হয় গাঙ্গুলীর। দেশের হয়ে ব্যাট হাতে সাফল্যই পেয়েছেন তিনি। অবসর নেয়ার আগে ১১৩ টেস্টে ৭,২১২ ও ৩১১ ওয়ানডেতে ১১,৩৬৩ রান করেছেন গাঙ্গুলী।
ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্যারিয়ারে সুনাম যতটা কুড়িয়েছেন, তার চেয়ে বেশি সুনাম গাঙ্গুলী অর্জন করেছেন অধিনায়ক হিসেবে। ভারতের সফল অধিনায়কের তকমাটা পেয়েছেন গাঙ্গুলী। ২০০০ সালে দলের দায়িত্ব পেয়ে খাদের কিনারা থেকে ভারতকে টেনে তুলেন তিনি। ২০০৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকােেপ ভারতকে রানার্স-আপের স্বাদ নেন নেতা গাঙ্গুলী।
তারপরও হঠাৎ করেই ক্রিকেটকে বিদায় বলতে হয় গাঙ্গুলীকে। তাই হয়তোবা এখন আক্ষেপই হচ্ছে তার। ব্যাটসম্যান হিসেবে দলের জন্য আরও রান করতে পারতেন বলে জানালেন গাঙ্গুলী, ‘আমাকে যদি আরও দু’টি ওয়ানডে সিরিজ খেলতে দেওয়া হতো, আমি আরও বেশি রান করতাম। নাগপুরে অবসর না নিলে পরের দু’টেস্ট সিরিজেও রান করতাম। এমনকি এখনো যদি আমাকে ছয় মাস অনুশীলন করতে দেওয়া হয়, রঞ্জিতে তিনটা ম্যাচ খেলতে দেওয়া হয়, আমি ভারতের হয়ে টেস্টে রান করতে পারব। আমার ছয় মাসও লাগবে না, আমাকে তিন মাস সময় দিলেই আমি রান করবো।’
২০০৮ সালে জাতীয় দল থেকে অবসর নিলেও, ২০১১ সালে সর্বশেষ প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেন গাঙ্গুলী। ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার পর তাকে দল থেকে বাদ দেয়া হয়। ওভাবে বাদ পড়াটা এখনো মানতে পারেন না গাঙ্গুুলী, ‘ওভাবে বাদ পড়াটা ছিলো অবিশ্বাস্য। ওই বছরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের একজন ছিলাম আমি। তারপরও আমাকে বাদ দেয়া হয়। আমাকে এখনো ওভাবে বাদ পড়াটা কষ্ট দেয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*